×
Recipes

বাড়িতে এইভাবে বানিয়ে ফেলুন বাঙালির প্রিয় ‘মুড়ি ঘন্ট’, একবার খেলে জাস্ট প্রেমে পড়ে যাবেন

বাঙালি খাবারের মধ্যে মুড়িঘণ্ট একটা বিশেষ রান্না। আমরা সবাই এটা খেতে ভালোবাসি । কিন্তু বানাতে গেলে অনেক সময় জল কমবেশি হয়ে ঠিক স্বাদ আসতে চায় না। আসুন আজ দেখা যাক জলের সঠিক পরিমাণ সহ মুড়িঘণ্ট রেসিপি।

উপকরণ :

ADVERTISEMENT

গোবিন্দভোগ চাল ১/২ কাপ, কাতলা মাছের মাথা ১ টা, আলু ২ টা, টমেটো ১ টা, নুন, চিনি, হলুদ, তেল, ঘি, তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা, দারচিনি, এলাচ, গোটা জিরে, গোটা ধনে, আদাবাটা, কাশ্মিরি লঙ্কাগুঁড়ো, কাঁচালঙ্কা।

প্রণালী :

স্টেপ ১:

চাল ভালো করে ধুয়ে ২০-২৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। অন্যদিকে মাছের মাথা টুকরো করে কেটে নুন হলুদ মাখিয়ে রাখুন। আলু ডুমো করে কেটে নিন। টমেটো কুচিয়ে রাখুন।

স্টেপ ২:

শুকনো খোলায় ১ টা তেজপাতা, ১ টা শুকনো লঙ্কা, ২ টা দারচিনি, ৪ টা এলাচ, ১ চামচ গোটা জিরে, ১ চামচ গোটা ধনে ভেজে নিন। এই ভাজা মশলা গুঁড়ো করে নিন।

স্টেপ ৩:

কড়ায় তেল গরম করে মাছের মাথা ভেজে নিন। ওই তেলেই নুন হলুদ দিয়ে আলু ভাজুন।
ওই তেলেই একটু ঘি যোগ করে নিন। ১ টা তেজপাতা, ১ টা শুকনো লঙ্কা, ১ টা দারচিনি, ২ টা এলাচ, ১ চামচ গোটা জিরে ফোড়ন দিন। এরপর আগে থেকে ভিজিয়ে রাখা চাল দিয়ে দিন। চাল ভালো করে ভেজে নিন।

স্টেপ ৪:

চাল ভাজা হলে যোগ করুন ১ চামচ আদাবাটা, ১/২ চামচ হলুদগুঁড়ো, ১ চামচ কাশ্মিরি লঙ্কাগুঁড়ো, ১/২ চামচ জিরেগুঁড়ো, ১/২ চামচ ধনেগুঁড়ো। মশলা কষানো হলে যোগ করুন টমেটো কুচি। স্বাদমতো নুন আর ১ চামচ চিনি দিয়ে সবকিছু আবারও কষিয়ে নিন।

স্টেপ ৫:

এরপর ২ টেবিল চামচ গরম জল দিয়ে ভেজে রাখা আলু আর মাছের মাথা যোগ করুন। এবার ৩ কাপ গরম জল যোগ করুন। যতটা চাল, তার ৩ গুণ জল দিতে হবে। ওপর থেকে চেরা কাঁচালঙ্কা দিয়ে ঢাকা দিয়ে রান্না করুন যতক্ষণ না চাল ও আলু সেদ্ধ হয়ে যায়।

স্টেপ ৬:

ওপর থেকে ঘি আর আগে থেকে বানিয়ে রাখা ভাজা মশলা গুঁড়ো দিয়ে নামিয়ে নিন আপনার সুস্বাদু মুড়িঘণ্ট।

দেখে নিন ভিডিও-