Recipes

Fish Patisapta Recipe: নারকেল পুর বা ক্ষীরের পাটিসাপটা নয়, বাড়িতে এবার বানান মাছের পাটিসাপটা, রইলো রেসিপি

বাঙালির বারো মাসের তেরো পার্বনের অন্যতম সেরা পার্বন হল পৌষ পার্বন। আর এই পৌষ পার্বনে বাঙালিদের পিঠে পুলি উৎসব হয়ে থাকে। নারকেলের পুর অথবা ক্ষীরের পুর দিয়ে পাটিসাপটা আমরা প্রায় সকলেই খেয়েছি। কিন্তু মাছের পুর দিয়ে পাটিসাপটা আশাকরি কেউই খাননি। তবে, আজ আপনাদের সেই রেসিপি বলবো। যার নাম ‘মাছের ঝাল পাটিসাপটা’। চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে বানাবেন।

উপকরণ: চালের গুঁড়ো, ময়দা, নুন, লোটে মাছ, রসুন বাটা, আদা বাটা, জিরে গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, লঙ্কার গুঁড়ো, গরম মসলা গুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো, পেঁয়াজ কুচি, লঙ্কা কুচি, সরষের তেল, ধনেপাতা কুচি।

প্রণালী: প্রথমেই একটি পাত্রে ১/২ কাপ চালের গুঁড়ো, ১/২ কাপ ময়দা, ১/২ চা চামচ নুন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে উষ্ণ গরম জল দিয়ে ব্যাটার তৈরি করে নিতে হবে। এরপর ৩০ মিনিটের জন্য এটিকে আলাদা সাইডে রেখে দিতে হবে। অন্যদিকে পুর বানানোর জন্য ৫০০ গ্রাম লোটে মাছকে ভালো করে ধুঁয়ে নিতে হবে। এরপর ১/২ টেবিল চামচ রসুন বাটা, ১ টেবিল চামচ আদা বাটা, ১ টেবিল চামচ জিরে গুঁড়ো, ১ টেবিল চামচ ধনে গুঁড়ো, ১ টেবিল চামচ লঙ্কার গুঁড়ো, ১/২ টেবিল চামচ গরম মসলা গুঁড়ো, ১/২ টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়ো, ২ টো মাঝারি সাইজের পেঁয়াজ কুচি, ২-৩ টে কাঁচালঙ্কা কুচি, স্বাদমতো নুন, ১ টেবিল চামচ সরষের তেল দিয়ে ভালো করে হাত দিয়ে মেখে নিতে হবে।

এরপর একটি কড়াইতে ২ টেবিল চামচ সরষের তেল দিয়ে মেখে রাখা মাছগুলো দিয়ে ভালো করে রান্না করে নিতে হবে। তারপর ৮-১০ মিনিট পর মাছ নরম হয়ে গেলে কাঁটা গুলো বের করে নিতে হবে। এরপর আরও মিনিট পাঁচেক রান্না করে নিতে হবে। তারপর কিছুটা ধনেপাতা কুচি ছড়িয়ে দিয়ে আরও মিনিট তিনেক রান্না করে মাছটাকে শুকিয়ে নিতে হবে। আর তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে পুর। এরপর একটি প্যানে অয়েল ব্রাশ করে তারমধ্যে খানিকটা পাটিসাপটার ব্যাটার দিয়ে হালকা করে প্যানটা ঘুরিয়ে নিয়ে ব্যাটারটা ছড়িয়ে নিতে হবে। তারপর ঢাকনা দিয়ে ১ মিনিট ঢেকে রাখতে হবে। এরপর একপাশ বরাবর মাছের পুরটা দিয়ে দিতে হবে। তারপর হালকা হাতে ফোল্ড করে নিলেই একেবারে তৈরি ‘মাছের ঝাল পাটিসাপটা’।

Related Articles

Back to top button