Offbeat

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

Advertisement
Advertisements

রবীন্দ্রনাথের সাধের ‘মংপু‘ নামের একটি জায়গার কথা শুনেছেন নিশ্চয়ই। তাঁর সাধের এই জায়গায় কিন্তু রবীন্দ্রনাথের বাড়ি আছে। যেখানে বহুবছর তিনি যাতায়াত করেছেন। যে কারণে বিশ্বকবি এই ছোট এলাকার সাথে খুবই পরিচিত। এখন যদিও এই জায়গাটি হয়ে উঠেছে পর্যটকদের কাছে হট ফেভারিট। তাই চলুন আজ আপনাদের এই বিশেষ জায়গা থেকে ঘুরিয়ে নিয়ে আসা যাক আজকের প্রতিবেদনের মাধ্যমে।

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

অবস্থান – দার্জিলিং জেলার ছোট পাহাড়ি একটি গ্রাম মংপু। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৩৭৫৯ ফুট উচুতে অবস্থিত একটি পাহাড়ি শহরাঞ্চল। দার্জিলিং শহর থেকে পূর্বদিকে ৩৩ কিলোমিটার ও শিলিগুড়ি শহর থেকে ৫২ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত৷

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

কিভাবে যাবেন – দার্জিলিং অথবা ঘুম স্টেশন থেকে মিনিবাস কিংবা গাড়িতে যাওয়া যায় মংপু। আবার কলকাতা থেকে ট্রেনে নিউ জলপাইগুড়ি। ওখান থেকে মিনি বাস কিংবা ছোটো গাড়িতে ঘুম স্টেশন। ঘুম থেকে ছোটো চারচাকা ভাড়া করে মংপু। বিমানে বাগডোগরা বিমানবন্দর হয়েও যেতে পারবেন।

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

কোথায় থাকবেন – ঘুম পাহাড়ের জোড়বাংলায় ছোটো থাকার হোটেল আছে। তাছাড়াও ছোট বড়ো হোম স্টে আছে। যেখানে থাকা ও খাওয়া এক সাথেই পেয়ে যাবেন।

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

কি কি দেখবেন – মংপুর ‘রবীন্দ্র ভবন’ সবার আগে দেখার মতো একটি স্থান। সেখানে মৈত্রেয়ী দেবীর বাড়িতে তিনি বহুদিন কাটিয়েছিলেন। রবীন্দ্রনাথ যে পথ দিয়ে একাধিকবার মংপুতে মৈত্রেয়ী দেবীর বাড়ি পৌঁছেছেন সেই রাস্তা অনেকটা একই রকম আছে তবে সময়ের সাথে সাথে উন্নতি হয়েছে। রবীন্দ্র ভবনে কবির ব্যবহৃত সব জিনিস খুব সুন্দর করে পর্যটকদের জন্য রেখে দেওয়া আছে।

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

মংপুর আরও এক সবচেয়ে বড়ো আকর্ষণ সিঙ্কোনা গাছ। পশ্চিমবঙ্গের এই জায়গাতেই একমাত্র সিঙ্কোনা গাছের চাষ হয়। সেখান থেকেই তৈরী হয় ম্যালেরিয়ার ঔষুধ ‘কুইনাইন’। পাইন আর সিঙ্কোনা গাছের জঙ্গল আছে যেখানে আপনি ঘুরে দেখতে পারেন।

অর্কিডের সিম্পোডিয়ামে ঢুকলে কখন যে ঘন্টার পর ঘন্টা পার হয়ে যাবে বুঝতে পারবেন না। অবিচ্ছিন্ন শান্ত শীতল নীরব পরিবেশ আপনাকে অবশ্যই গ্রাস করবে। চাইলে একদিনের জন্য দার্জিলিং শহরও ঘুরে দেখতে পারেন।

ভ্যাপসা গরমে নাজেহাল! স্বর্গ সুখ পেতে অবশ্যই ঘুরে আসুন কাছের দুর্দান্ত এই জায়গা থেকে

খরচ – পাহাড়ি এই জায়গা ঘুরতে আপনার খুব বেশি খরচ হবে না। তাই মাথাপিছু ৫০০০-৭০০০ টাকা ধরেই ট্রিপ প্ল্যান করতে পারেন।