×
News

মেয়ের কথা না ভেবে নতুন জামাইকে বিয়ে করল শাশুড়ি

বিয়ে মানেই একরাশ খুশি। কতই না জল্পনা-কল্পনা শুরু হয় একটা বিয়েকে ঘিরে। কিন্তু এই খুশির মরশুমে যখন এই বিয়েকে ঘিরে শুরু হয় কটুক্তি জনক চর্চা তখন কেমন লাগে? জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে আমাদের কারোর হাতে নেই তাই কখন কি ঘটে যাবে আমরা কেউ বলতে পারিনা।

সম্প্রতি বাংলাদেশের এক বেসরকারি সংবাদপত্রের মাধ্যমে এক অদ্ভুত ঘটনা চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। সূত্রের খবর থেকে জানা যায় যে, বাংলাদেশের টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলায় করিয়াতা নামক গ্রামে এলাকাবাসী প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়ে সদ্য বিবাহিতা স্ত্রী এবং স্বামীকে গণপিটুনি দিতে শুরু করেন।

ADVERTISEMENT

হাদিরা ইউনিয়ন পরিষদের এক নাম্বার ওয়ার্ডের মেম্বার নজরুল ইসলাম কথায় জানা যায় যে, হাজরাবাড়ি পূর্ব পাড়া গ্রামের ওয়াহেদ্যআলীর একমাত্র সন্তান মনছেদ আলীর সাথে গোপালপুর উপজেলার করিয়াটা গ্রামে এক তরুনীর সাথে বিবাহ হয় গত 2nd অক্টোবর।

বিয়ের কিছুদিন পর মেয়ে জামাইয়ের বাড়ি ঘুরতে যায় মেয়ের মা। তাদের সাথে বেশ কিছুদিন তিনি থেকেও আসেন, এবং তারপর গত শুক্রবার যখন তিনি বাড়ি ফেরেন তখন মেয়ে এবং জামাইকে নিয়ে বাড়ি ফেরত আসেন।

এরপর হঠাৎ করেই শনিবার সকালে মোনছদের সাথে সংসার করবে না বলে জানিয়েছেন তরুণী। এরজেরেই শুরু হয় পারিবারিক অশান্তি, এবং সেখানেই একটি বিস্ফোরক মন্তব্য করে চর্চা সৃষ্টি করেন তরুনীর মা। তিনি জানান ,মেয়ে যদি নতুন জামাইয়ের সাথে সংসার করতে না চায় তাহলে নতুন জামাইয়ের সাথে আমি সংসার করবো।

নজরুল ইসলাম আরও জানাই যে, ছেলের বাবা গ্রামের গণ্যমান্যদের নিয়ে সালিশি ডাকেন। চেয়ারম্যান আবুল কাদের তালুকদার জানান যে, হঠাৎ করে শাশুড়ি এবং জামাইয়ের বিবাহের কথা শুনে গ্রামের গ্রামবাসীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে তাদের বাড়ি ঘেরাও করে মারধর করতে শুরু করে, ঘটনার খবর পেয়ে তাড়াতাড়ি ছুটে যান তারা পরিস্থিতি সামাল দিতে। এবং পরবর্তীতে বিষয়টি সামাল দিয়ে সবার সম্মতি নিয়ে মেয়েকে তালাক দিয়ে জামাইকে বিয়ে করেন শাশুড়ি।

ADVERTISEMENT

Related Articles