×
NewsOffbeat

মা-বাবার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হোটেল চালাচ্ছেন নন্দিনী, স্মার্ট দিদির কাছে খেতে উপচে পড়ছে ভিড়

আজকালকার যুগে মেয়েরা আর ছেলেদের থেকে পিছিয়ে নেই। তারা যেমন ঘর সামলায়, তেমনই আবার বাইরেটাও সামলে চলেছেন সমানতালে। স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত, চাকরি কিংবা ব্যবসা সবেতেই তারা সেরা। আগেকার দিনে মেয়ে মানেই ঘোমটা টেনে চার দেওয়ালের মাঝে বন্দি একটা জীবন। কিন্তু এখন আর তা নয়। তারা এখন স্বাধীন। এমনকি ছেলেদের মতো তারাও বাবা-মায়ের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সংসার চালাতে প্রস্তুত।

মা-বাবার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হোটেল চালাচ্ছেন নন্দিনী, স্মার্ট দিদির কাছে খেতে উপচে পড়ছে ভিড় -

আর তেমনই একটি নাম হল নন্দিনী গাঙ্গুলি। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে তিনি এখন ভাইরাল। বর্তমানে তাকে ভাইরাল দিদি বলেই সকলে চিনছেন। বাঙালিদের সবকিছুর সঙ্গে খুবই ওতোপ্রোত ভাবে জড়িয়ে আছে খাওয়া-দাওয়া। ইন্ডিয়ান হোক বা চাইনিজ, ঝালমুড়ি হোক বা তেলেভাজা, নিরামিষ হোক বা মাটন সব খাবারের স্বাদই কিন্তু চেটেপুটে নিতে একেবারে ওস্তাদ বাঙালি।

আর তেমনই একটি খাবারের দোকান সামলায় সুন্দরী নন্দিনী। তার হাতের রান্না যেন একেবারে অমৃত। অল্প দামে তার দোকানের ভেজ, চিকেন, মাটন থালি খাওয়ার জন্য প্রতিদিন ভিড় জমায় সারি সারি মানুষ। মূলত ব্যস্ত অফিসপাড়ায় তিনি সকলের অন্নপূর্ণা হয়ে খাবারের যোগান দেন। স্মার্ট দিদি নন্দিনীর পরণে বেশিরভাগ থাকে কালো রঙের টি-শার্ট ও জিন্স।

মা-বাবার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে হোটেল চালাচ্ছেন নন্দিনী, স্মার্ট দিদির কাছে খেতে উপচে পড়ছে ভিড় -

বাবা-মায়ের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে তিনি সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সমান তালে কাজ করে চলেছেন। মেয়েরা চাইলে কী না করতে পারে সেটা এই নন্দিনীকে দেখলেই বোঝা যায়। এসব শুনে আপনারও নিশ্চই এই দোকানের খাবার টেস্ট করতে ইচ্ছে করছে? হ্যাঁ সেটা হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু যাবেন কিভাবে? সে উত্তরও আছে আমাদের কাছে।

কলকাতার তিন নম্বর কয়লা ঘাট স্ট্রিট ইস্টার্ন রেলওয়ে অফিসের পিছনেই আপনারা পেয়ে যাবেন এই ভাইরাল নন্দিনী দিদিকে। তাহলে আর দেরি কিসের? আজই ঘুরে আসতে পারেন এই দোকান থেকে। আর চেখে দেখতে পারেন নন্দিনী দিদির হাতের রান্না।