×
Entertainment

বিয়ের মন্ডপ ছেড়ে অনুজের জন্য মন্দিরে প্রদীপ জ্বালালো গুড্ডি, যুধাজিতের কি হবে? তুমুল উত্তেজনা দর্শকমহলে

অনুজের সুস্থতা কামনা করে মন্দিরে প্রদীপ জ্বালালো গুড্ডি (Guddi)। সঙ্গে গাইছে ‛মঙ্গল দ্বীপ জ্বেলে’ গান। এই ধারাবাহিক নিয়ে আশাকরি নতুন করে বলার কিছু নেই। স্টার জলসার পর্দার এই ধারাবাহিক একটি অনুপ্রেরণা মূলক গল্প দিয়ে শুরু করেছিল যাত্রা। আর তা হল গুড্ডির পুলিশ হতে চাওয়া। দিদির হবু বর অনুজকে দেখেই সেই ইচ্ছে জেগেছিল তার মনে।

কিন্তু ভাগ্য যে অন্য কথা বলে। যার সঙ্গে যার গাঁটছড়া বাঁধা তার সঙ্গেই কিনা বিয়ে হবে। ঠিক তেমনই শিরিন নয় গুড্ডির সঙ্গেই বিয়ে হয়ে যায় অনুজের। কিন্তু এই বিয়ে কোনোদিনই মেনে নেয় না অনুজ। কেননা সে শিরিনকে ভালোবাসে। আর তাই নানান ভাবে গুড্ডিকে অপমান করতে থাকে। এরপর একটা সময় পর গুড্ডির সঙ্গে অনুজের ডিভোর্স হয়। এরপর শিরিনের সঙ্গে বিয়ে হয় অনুজের।

বিয়ের মন্ডপ ছেড়ে অনুজের জন্য মন্দিরে প্রদীপ জ্বালালো গুড্ডি, যুধাজিতের কি হবে? তুমুল উত্তেজনা দর্শকমহলে -

কিন্তু এরই মাঝে অনুজ কখন যে গুড্ডিকে ভালোবেসে ফেলেছে তা নিজেও জানে না। এরপর পেরিয়েছে বহু ঝড় ঝঞ্ঝা। সিরিয়ালের নিয়মিত দর্শকেরা জানেন যে, বর্তমানে যুধাজিৎ-গুড্ডির বিয়ের পর্ব দেখানো হচ্ছিলো ধারাবাহিকে। আর যা মানতে পারছিল না অনুজ। আর তাইতো সে গাড়ি নিয়ে বেরিয়েছে মরবে বলে। যথারীতি তার গাড়ি এক্সিডেন্ট হয়। আর এই খবর গুড্ডির কানে পৌঁছাতেই সে বিয়ে না করে মন্ডপ ছেড়ে বেরিয়ে আসে।

তার মনে এখন শুধু অনুজ কিভাবে সুস্থ হবে সেই চিন্তা। যদিও সে জানে যে যুধাজিতের সঙ্গে সে অন্যায় করছে। কিন্তু তারপরেও সে নিরুপায়। কেননা, অনুজের মতো গুড্ডিও অনুজকে খুব ভালোবাসে। ওদিকে অনুজের সিনিয়ার হাসপাতালে পৌঁছানোর পর শিরিন ও তার মায়ের সঙ্গে দু-এক কথায় বাত বিতন্দ্রা হয়। আর ওদিকে আবার গুড্ডিকে দেখা যায় যে, সে যুধাজিৎকে সঙ্গে নিয়েই একটি মন্দিরে গেছে। আর সেখানে অনুজের সুস্থতা কামনায় সে প্রদীপ জ্বালিয়েছে। এমনকি গানও গাইছে।

এবার দেখার পালা গুড্ডির এই প্রার্থনায় অনুজ কত তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ওঠে। আর তারপর অনুজ-গুড্ডি ও যুধাজিৎয়ের সম্পর্ক কোন খাতে বয়।