×
Entertainment

মাত্র ৭ মাসের মধ্যেই বন্ধের মুখে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘সাহেবের চিঠি’! মুখ খুললেন দেবচন্দ্রিমা

বর্তমানে টেলিভিশনের পর্দায় একেরপর এক বাংলা সিরিয়াল আসছে। তার পাশাপাশি বন্ধ হচ্ছে একাধিক সিরিয়াল। কোনো নোটিশ না দিয়েই ৭-৮ মাসের মধ্যে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ধারাবাহিক গুলি। যার মধ্যে রয়েছে ‛সাহেবের চিঠি’। ২০২২ সালের জুন মাসে শুরু হয়েছিল এই ধারাবাহিক। তারপর ২১০ এপিসোড দিয়ে মাত্র ৭ মাসের মাথায় বন্ধ হয়ে যায় এই ধারাবাহিক। কিন্তু এত কম দিনে কেন বন্ধ হল এই সিরিয়াল তা নিয়ে এবার মুখ খুললেন ধারাবাহিকের নায়িকা চিঠি ওরফে দেবচন্দ্রিমা।

মাত্র ৭ মাসের মধ্যেই বন্ধের মুখে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক 'সাহেবের চিঠি'! মুখ খুললেন দেবচন্দ্রিমা -

অল্প সময়ের মধ্যেই বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছিল এই ধারাবাহিক। ধারাবাহিকে সাহেবের চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেতা প্রতীক সেন (Pratik Sen)। আর চিঠির চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী দেবচন্দ্রিমা সিংহ রায় (Debchandrima Singha Roy)। দুজনের টেলিপাড়ার জনপ্রিয় দুটি মুখ। কিন্তু তারপরেও কেন বন্ধের মুখে পড়লো এই ধারাবাহিক সে কৌতূহল সকলের। এই বিষয়ে অভিনেত্রী বলেছেন যে, ‛এই সিদ্ধান্তের সবটাই চ্যানেল কর্তৃপক্ষের হাতে। আমার কোনো মন্তব্য করার অর্থই হয়না। তারা হয়তো মনে করেছেন এটাই হয়তো সিরিয়াল বন্ধের সঠিক সময়। তাই এমনটা করেছেন। আমার মন্তব্য করে কোনো লাভ নেই’।

মাত্র ৭ মাসের মধ্যেই বন্ধের মুখে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক 'সাহেবের চিঠি'! মুখ খুললেন দেবচন্দ্রিমা -

সিরিয়াল তো বন্ধ। তাহলে এখন কি করছেন দেবচন্দ্রিমা? কিভাবেই বা তার সময় কাটছে সেটা জানতে আগ্রহী সকলেই। সেই প্রশ্নের উত্তরে দেবচন্দ্রিমা জানিয়েছেন যে, ‛এখন শুধু বিশ্রাম আর বিশ্রাম। চেষ্টা করছি পুরো সময়টাকে পরিবারকে দেওয়ার’। তাহলে এরপর আবারও কোন সিরিয়ালে দেখা যাবে দেবচন্দ্রিমাকে? নাকি কোনো ওয়েব সিরিজে? এই বিষয়ে অভিনেত্রীর মত তিনি এখনও পর্যন্ত এই বিষয়টি ঠিক করে উঠতে পারেননি।

মাত্র ৭ মাসের মধ্যেই বন্ধের মুখে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক 'সাহেবের চিঠি'! মুখ খুললেন দেবচন্দ্রিমা -

তবে, অনুরাগীদের সঙ্গে তিনি কিন্তু সবসময়ই সংযোগ রেখে চলেছেন। আর তা হল তার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল ও তার ইউটিউব চ্যানেল মারফত। দিন কয়েক আগেই গোয়া থেকে ঘুরে এসেছেন অভিনেত্রী। সেখান থেকে একেরপর এক বিকিনি লুকে ধরা দিয়েছেন অভিনেত্রী। যা দেখে চোখ কপালে উঠেছিল নেটিজেনদের।